1. admin@janasongjog.com : admin :
  2. jeffereybillson1051@1secmail.org : kpuklaudia :
  3. agrant807@yahoo.com : latoshalvz :
  4. margarite@i.shavers.skin : lucillerodger :
  5. bookcafebd21@gmail.com : Sazzadur : Sazzadur
  6. test15983366@mailbox.imailfree.cc : test15983366 :
  7. test41245078@inbox.imailfree.cc : test41245078 :
  8. ariannekeeling@1secmail.org : thaliacedillo46 :
  9. zakirmin976@gmail.com : Zakir_min :
লালমনিরহাটে একসাথে মসজিদ ও পূজা মন্ডপ চলছে যুগ যুগ থেকে | জনসংযোগ
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:৩৩ অপরাহ্ন

লালমনিরহাটে একসাথে মসজিদ ও পূজা মন্ডপ চলছে যুগ যুগ থেকে

  • প্রকাশের সময় মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর, ২০২২
  • ৮৮ বার পড়া হয়েছে
FB IMG 16648985275511117
print news

মোঃ রয়িসুল সরকার রোমন, স্টাফ রিপোর্টার

লালমনিরহাটে উঠানের এক পাশে মসজিদ আর ওই একই উঠানের আরেক পাশে মন্দির। এক পাশে ধোপকাঠি, অন্য পাশে আতরের সুঘ্রাণ। এক পাশে উলুধনি, আর অন্য পাশে চলে জিকির। ঠিক এমনিভাবেই ধর্মীয় সম্প্রীতির এক অনন্য দষ্টান্ত স্থাপন করে যুগ যুগ ধরে চলছে পৃথক দুইটি ধর্মীয় উপাসনালয়। সম্প্রীতির এমনই এক উজ্জ্বল নিদর্শন সীমন্তবর্তী জেলা লালমনিরহাট শহরের কালীবাড়ী এলাকার পুরান বাজার জামে মসজিদ ও কালীবাড়ী কেন্দ্রীয় মন্দিরটি। দুটি উপাসনালয় রয়েছে একই উঠানে। এখানে যে যার মতো ধর্ম পালন করে চলেছেন।শহরের স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ১৮৩৬ সালে কালী মন্দরটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ওই সময় লালমনিরহাট শহর কালীবাড়ী এলাকার পুরান বাজার এলাকায় বিভিন্ন দেশ থেকে আসা ধর্মপ্রাণ মুসলমান ব্যবসায়ীরা নামাজ আদায় করার জন্য তার পাশেই একটি ছোট ঘর তোলেন। আর সেটির নামকরণও করা হয় পুরান বাজার জামে মসজিদ হিসেবে। ওই থেকে এক উঠানেই চলছে দুই ধর্মের দুই উপাসনালয়ের কাজ।জানা গেছে, আযানের সময় থেকে নামাজের জামায়াত শেষ না হওয়া পর্যন্ত মন্দিরের মাইক, ঢাক- ঢোলসহ যাবতীয় শব্দযন্ত্র বন্ধ থাকে। নামাজের জামায়াত শেষ হলে মন্দিরের কার্যক্রম স্বাভাবিক হয়। এখানে কোনো বিশৃঙ্খলাও হয় না। শালীনতা বজায় রেখে একই উঠানে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসব পালন করে আসছেন উভয় ধর্মের ধর্মালম্বীরা।কালীবাড়ী জেলা যুবলীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির মোড়ল বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে এখানে দূর্গাপুজাসহ অন্যান্য ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলো হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন চালিয়ে আসছে। লালমনিরহাট মজিদা খাতুন সরকারি কলেজের ইংলিশ প্রভাষক ফারুক বলেন মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকজন ও মসজিদে নামাজ আদায় করে আসছেন। কিন্তু কোন দিনও এখানে কোন প্রকার অপ্রীতিকর কোন ঘটনা ঘটেনি। এটি সামাজিক সম্প্রীতির এক বড় উদাহরণ।পুরান বাজার জাম মসজিদের ইমাম মোহাম্মদ আলা উদ্দিন বলেন, ঐতিহ্যবাহী পুরান বাজার মসজিদের পাশেই একসঙ্গে দুটি প্রতিষ্ঠান। মসজিদের আগে মন্দিরটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তবুও এখানে জাতি ধর্ম নির্বিশেষে সব শ্রেণির মানুষ স্বাধীনভাবে ঘুরতে আসে। আমরা তাদের সব কাজে সহযোগিতা করি। তারাও আমাদের সহযোগিতা করেন। শিক্ষক ফজলুল বারী লিখন বলেন নামাজের সময় মন্দিরের ঢাক-ঢোল বন্ধ রাখা হয়। কোন বিশৃংখলা ছাড়াই যুগ-যুগ ধরে চলছে এ সম্প্রীতির বন্ধন।

কেন্দ্রীয় কালীবাড়ী মদিরের সভাপতি ও প্রধান পুরোহিত শংকর চক্রবর্তী জানান, ১৮৩৬ সাল প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর এলাকার নামকরণও করা হয় কালীবাড়ী। পরে এখানে বাজার গড়ে উঠলে বাজারের ব্যবসায়ী ও শহরের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা মন্দিরের পাশেই প্রতিষ্ঠা করেন পুরান বাজার জামে মসজিদ।সেই থেকে এক উঠানে চলছে দুই ধর্মের দুই উপাসনালয়ের কার্যক্রম। লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ আবু জাফর বলেন, এখানকার মানুষ সব ধর্মের মানুষের সহাবস্থান বিশ্বাস করেন। যার প্রমাণ এক উঠানে কেন্দ্রীয় কালীবাড়ী মদির ও পুরান বাজার জামে মসজিদ।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..



সর্বশেষ খবর