1. admin@janasongjog.com : admin :
  2. harwin@sengined.com : harwin :
  3. kimbhary@sengined.com : kimbhary :
  4. jeffereybillson1051@1secmail.org : kpuklaudia :
  5. agrant807@yahoo.com : latoshalvz :
  6. margarite@i.shavers.skin : lucillerodger :
  7. bookcafebd21@gmail.com : Sazzadur : Sazzadur
  8. test15983366@mailbox.imailfree.cc : test15983366 :
  9. test41245078@inbox.imailfree.cc : test41245078 :
  10. ariannekeeling@1secmail.org : thaliacedillo46 :
  11. zakirmin976@gmail.com : Zakir_min :
সর্ণ পদক পাওয়া শৈলকূপা খন্দকার প্রাইভেট হাসপাতালের নামে মিথ্যা ষড়যন্ত্র | জনসংযোগ
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৫৮ পূর্বাহ্ন

সর্ণ পদক পাওয়া শৈলকূপা খন্দকার প্রাইভেট হাসপাতালের নামে মিথ্যা ষড়যন্ত্র

  • প্রকাশের সময় রবিবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২২
  • ২৩ বার পড়া হয়েছে
20221030 142903 scaled
print news

শৈলকূপা উপজেলা প্রতিনিধিঃ সর্নপদক হাসপাতালের নামে মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে এলাকার কিছু দালাল চক্র খোঁজ নিয়ে জানা যায় ২০০২ সালে শৈলকূপা কবিরপুর ৩ রাস্তার মোড়ে তিলে তিলে গড়ে উঠেছে শৈলকূপা খন্দকার প্রাইভেট হাসপাতাল অনেক সুনামের সহিত চালিয়ে যাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কিন্তু হঠাৎ করে এলাকার কিছু দালাল মিথ্যা অপপ্রচার করে চলছে। শৈলকূপা খন্দকার প্রাইভেট হাসপাতালের মালিক মোঃ ফজলুল রহমান বলেন আমার খন্দকার প্রাইভেট হাসপাতালের পাশেই শৈলকূপা সরকারি হাসপাতাল রয়েছে সেখানে গরীব অসহায় মানুষ সেবা নিতে আসলে কিছু দালাল চক্র আমার এবং আমার পাশে কিছু ক্লিনিক আছে তাদের কে নিয়ে আসে কিছু কমিশনের আশায় কিন্তু আমার হাসপাতালের নিয়ম হচ্ছে গরীব অসহায় মানুষের কাছ থেকে কোন প্রকার বেশি টাকা নেওয়া যাবে না এবং কোন প্রকার দালাল দের কমিশন দেওয়া যাবে না। সেই থেকে অনেক দালাল আমার হাসপাতালের নামে মিথ্যা গুজব ছড়িয়ে যাচ্ছে। গত ২৭ তারিখে বিকাল ৪টার দিকে কুশবাড়ীয়া গ্রাম থেকে শরিফা খাতুন নামে একজন মহিলা কে সিজার করার উদ্দেশ্য আমার শৈলকূপা প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শরিফা খাতুনকে সমস্ত টেস্ট করে দেখা যায় রোগী কে ৫ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন

তখন রক্ত ম্যানেজ করতে চেষ্টা চালানো হয় কিন্তু রোগী পক্ষ বলে আমরা বাহিরে নিয়ে যাবো সাথে সাথে আমার ম্যানেজার রোগী কে রিফার্ট করে দেয় আমার অফিসের নোট বুক অনুযায়ী রোগী কে ১ ঘন্টা আমার হাসপাতালে থাকে এবং টেস্ট ছাড়া রোগী কে কোন প্রকার চিকিৎসা অথবা ওষুধ প্রয়োগ করি নাই। তাহারা ঝিনাইদহ কোন এক ক্লিনিকে ভর্তি করে পরে ঝিনাইদহ এসে বাচ্চা টা সিজার করার অবস্থায় মারা যায়। কিন্তুু আমি কিছু ই জানিনা হঠাৎ করে জানতে পারি শৈলকূপা থানায় আমার নামে শরিফার স্বামী মিথ্যা অভিযোগ করেছে যে আমরা বেলা ৪টার দিকে রোগী কে খন্দকার প্রাইভেট হাসপাতাল থেকে নিয়ে গিয়ে ঝিনাইদহ অন্য ক্লিনিকে রাত ১২ টাই সিজারিং অবস্থায় মারা গিয়েছে তাহলে কেন আমার খন্দকার প্রাইভেট হাসপাতালের নামে মিথ্যা অভিযোগ করলো আমি প্রসাশনের কাছে তদন্ত পূর্বক বিচার চাই। এই বিষয়ে শরিফার স্বামী বলেন আমি বিকালে শৈলকূপা খন্দকার প্রাইভেট হাসপাতাল আমার স্ত্রী কে ভর্তি করেছিলাম কিন্তু পরে হাসপাতাল থেকে আমাদের বলল রোগীর যে অবস্থা তাহাতে রক্ত লাগবে তখন আমরা ঝিনাইদহ নিয়ে যায় কিন্তু রাত ১১ টার দিকে আমার বাচ্চা সিজার করা অবস্থায় মারা যায়। শৈলকুপা থানায় অভিযোগ করেছেন কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন আমার বিয়াই সহ অনেকেই বলল তাই করছি।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..



সর্বশেষ খবর