,

ভোলার মেঘনায় আট ট্রলারে ডাকাতি


সাগর দত্ত,তজুমদ্দিন উপজেলা প্রতিনিধি

ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলার মেঘনা নদীতে আট জেলে ট্রলারে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এসময় জলদস্যুরা পাঁচ জেলেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে স্বজনরা দস্যুদের দাবীকৃত মুক্তিপণের টাকা পরিশোধ করে তাদের মুক্ত করে।

অপহৃত জেলেদের পরিবার সূত্রে জানা যায়, রবিবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার মেঘনা নদীর সোনার চর ও চর মোজাম্মেল এলাকায় মাছ ধরছিলেন জেলেরা। এ সময় জলদস্যু বাহিনী অস্ত্র নিয়ে জেলেদের ট্রলারে হামলা করে সেখানে অবস্থানরত আটটি মাছ ধরার ট্রলারে ডাকাতি চালায়। এতে ট্রলারে থাকা মাছ, জাল, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন লুট করে।
পরে দস্যুরা ভোলা সদর উপজেলার বাসিন্দা মাকসুদ (৩৫) ও শফি মাঝি (৪০), লালমোহন উপজেলার বাসিন্দা নকিব (৪৫) এবং মনপুরা উপজেলার চর কলাতলির বাসিন্দা হারুন (৪০) ও রুবেল (৩৫)সহ পাঁচ জেলেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। অপহৃতদের ছাড়িয়ে নিতে দস্যুদের মোবাইল নম্বর দিয়ে যায়।

পরে ঘাটের আড়ৎদার ও স্বজনরা মিলে প্রশাসনকে না জানিয়ে বিকাশের মাধ্যমে মুক্তিপণের এক লাখ টাকা পরিশোধ করেন। পরে সোমবার ভোর ৫টার দিকে লালমোহনের মির্জাকালুর হাকিমুদ্দিন এলাকায় চোখ বাঁধা অবস্থায় অপহৃত পাঁচ জেলেকে ছেড়ে দিয়ে যায়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে অপহৃত জেলেদের এক স্বজন জানান, অপহরণ ও মুক্তিপণের বিষয়ে প্রশাসনকে জানালে অপহৃতদের মেরে ফেলার হুমকি দেয়ায় আমরা প্রশাসনকে বিষয়টি জানাইনি।

তজুমদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম জিয়াউল হক জানান, রাতে মেঘনায় ডাকাতি ও জেলে অপহরণের সংবাদ পেয়েছি। বিকাশ নম্বর উদ্ধার করে অপরাধীদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে।

তজুমদ্দিন কোস্ট গার্ড কন্টিনজেন্ট কমান্ডার মো. সুলতান জানান, মেঘনায় আমাদের নিয়মিত টহল অভিযান আছে। কিন্তু রাতে ডাকাতির সংবাদ কেউ আমাদের জানায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,১৫৩,৩৪৪
সুস্থ
৯৮৮,৩৩৯
মৃত্যু
১৯,০৪৬
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
৬,৭৮০
সুস্থ
৯,৭২৩
মৃত্যু
১৯৫
স্পন্সর: একতা হোস্ট