,

মেডিকেল পরীক্ষায় ঝিনাইদহ জেলার প্রথম ও জাতীয় মেধায় ২৩ তম হয়েছেন নিঝুম

রিয়াজ,ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ

কলেজ সময় হতেই নিঝুমের স্বপ্ন ছিলো, বড় হয়ে ডাক্তার হবে। সাদা অ্যাপ্রোন থাকবে গায়ে । সেই স্বপ্ন আজ নিঝুমের পূরণ হয়েছে । ঢাকা মেডিকেল কলেজ,ঢাকায় চান্স পেয়ে । সেই সুযোগ অর্জন করেছে সেরা ২৫ জনের মধ্যে থেকে । সারা বাংলাদেশে ১ লাখ ২২ হাজার ৮৭৪ জনের ভেতরে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে সে অর্জন করেন ২৩ তম স্থান । জেলা পরিসংখ্যানে তিনিই প্রথম ।

ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা উপজেলার ২নং মির্জপুর ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের জাহিদুল ইসলাম ও রিনা বেগমের মেয়ে লায়লা জাহিদ নিঝুম এবার মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় সফলতার সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েছেন।

ব্যবসায়ী পিতার এক মেয়ে ও এক ছেলে। অত্যন্ত মেধাবী নিঝুম ছোটবেলা থেকেই পড়ালেখা করতে ভালোবাসে। মেধাবী এই ছাত্রী এলাকার মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে গোল্ডেন-এ প্লাস ও ট্যালেন্টফুলে বৃত্তি পেয়ে পিএসসিতে সফলতার সহিত উত্তীর্ণ হয়। এরপর বসন্তপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে থেকে জেএসসি ও এসএসসি উভয় পরীক্ষায় গোল্ডেন-এ প্লাস ও সেখানেও ট্যালেন্টফুলে বৃত্তি পায়।
তারপর সে ভর্তি হয় সরকারি কেসি কলেজ, ঝিনাইদহে ।শিক্ষার্থী মেডিকেল চান্স পায় এ বছরে ২০-২৫ জন। স্কুল-কলেজের দূরের ছাত্রী ছিল সে। আধাঘন্টা গাড়িতে চড়ে শহরে আসতে হতো তাকে প্রতিদিন ।

নিঝুম দৈনিক জনসংযোগ কে বলেন,” আমি মনে করি কলেজ জীবনেই ভর্তি পরীক্ষার রুট গড়ে নেওয়া উচিত। আর এতে আমার সম্মানিত স্যাররা, আম্মু-আব্বু বিশেষ করে আমার কোচিং এর শিক্ষকরা আমাকে সর্বোচ্চ সাহায্য করেছেন। উনাদের দোয়া ও মহান আল্লাহর ইচ্ছায় আমি মেডিকেলে চান্স পেয়েছি, আলহামদুলিল্লাহ।
মহান আল্লাহর ইচ্ছায় আমি যেন একজন ভালো ডাক্তার হয়ে সত্য ও ন্যায়ের পথে থেকে সবার সেবা ও পেশাদারি দায়িত্ব পালন করতে পারেন”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,১৫৩,৩৪৪
সুস্থ
৯৮৮,৩৩৯
মৃত্যু
১৯,০৪৬
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
৬,৭৮০
সুস্থ
৯,৭২৩
মৃত্যু
১৯৫
স্পন্সর: একতা হোস্ট