1. admin@janasongjog.com : admin :
  2. kimbhary@sengined.com : kimbhary :
  3. jeffereybillson1051@1secmail.org : kpuklaudia :
  4. agrant807@yahoo.com : latoshalvz :
  5. margarite@i.shavers.skin : lucillerodger :
  6. bookcafebd21@gmail.com : Sazzadur : Sazzadur
  7. test15983366@mailbox.imailfree.cc : test15983366 :
  8. test41245078@inbox.imailfree.cc : test41245078 :
  9. ariannekeeling@1secmail.org : thaliacedillo46 :
  10. zakirmin976@gmail.com : Zakir_min :
উসতায মওদূদীকে জানতে বাংলায় যত বই -আবু সুফিয়ান | জনসংযোগ
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:২৮ অপরাহ্ন

উসতায মওদূদীকে জানতে বাংলায় যত বই -আবু সুফিয়ান

  • প্রকাশের সময় মঙ্গলবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২২
  • ৭৭ বার পড়া হয়েছে
FB IMG 1668504099681
print news

বইগুলো সম্পর্কে বলার আগে একটু ভূমিকা-কথন করা যাক।

মাওলানা মওদূদী রহ.-কে জানতে বাংলায় অনেকগুলো ভালো বই আছে। মাওলানার অনুরক্ত ও সমালোচক উভয়শ্রেণির উচিৎ এ বইগুলো অন্তত পড়া। তাহলে অতিভক্তি আর অতিবিদ্বেষ উভয় প্রান্তিকতা থেকে নিজেকে হেফাজত করা যাবে। ইনসাফ করা সম্ভব হবে। আর প্রত্যেক মুসলিম ইনসাফের জন্য আদিষ্ট। উসতায আবদুল করিম যাইদান ‘শারহুল উসুলিল ইশরিন’ পুস্তিকায় বলেন—

“আদালত বা ন্যায়পরায়ণতা মানে হচ্ছে– প্রত্যেক হকদারকে তার প্রাপ্য হক দিয়ে দেওয়া এবং কারও প্রতি জুলুম না করা। সকল মানুষের সাথেই আমাদেরকে আদালতপূর্ণ আচরণ করতে হবে; সে মুসলিম বা কাফির, কাছের বা দূরের, বন্ধু বা শত্রু যে-ই হোক না কেন। আল্লাহ তায়ালা বলেন–
يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا كُونُوا قَوَّامِينَ لِلَّهِ شُهَدَاءَ بِالْقِسْطِ ۖ وَلَا يَجْرِمَنَّكُمْ شَنَآنُ قَوْمٍ عَلَىٰ أَلَّا تَعْدِلُوا ۚ اعْدِلُوا هُوَ أَقْرَبُ لِلتَّقْوَىٰ ۖ وَاتَّقُوا اللَّهَ ۚ إِنَّ اللَّهَ خَبِيرٌ بِمَا تَعْمَلُونَ ۞
“হে মুমিনগণ! তোমরা আল্লাহর উদ্দেশ্যে (হকের ওপর) দৃঢ়ভাবে প্রতিষ্ঠিত (এবং) ন্যায়পরায়ণতার সাথে সাক্ষ্যদাতা হও। কোনো সম্প্রদায়ের প্রতি বিদ্বেষ যেন তোমাদের কখনও ন্যায়বিচার না করতে প্ররোচিত না করে। ইনসাফের নীতি অবলম্বন করো, এটা তাকওয়ার নিকটতর। আর ভয় করো আল্লাহকে। তোমরা যা করো, আল্লাহ তার খবর রাখেন।” সূরা মায়িদা : ৮

শাসনকার্য, বিচার-আচার, প্রশংসা ও গুণকীর্তন, নিন্দা ও সমালোচনা, সন্তুষ্টি ও বিরাগসহ সকল ক্ষেত্রেই আদালত বা ন্যায়পরায়ণতার নীতি অবলম্বন করতে হবে। দুই ব্যক্তির মাঝে বিচার-ফয়সালার ক্ষেত্রে অন্যায় করা আদালত নয়। কারও প্রশংসা করতে গিয়ে বাড়াবাড়ি করাও আদালত নয়; অর্থাৎ এমনভাবে কারও প্রশংসা করা, যার অর্ধেক প্রশংসাও হয়তো তার প্রাপ্য নয়। এমনিভাবে কারও নিন্দা করতে গিয়েও বাড়াবাড়ি করা আদালত নয়; অর্থাৎ এমনভাবে কারও নিন্দা করা, যার এক-দশমাংশ নিন্দাও হয়তো তার প্রাপ্য নয়। আনন্দের সময় প্রশংসা করা এবং রাগের সময় নিন্দা করাও আদালতের নীতি হতে পারে না। একইভাবে কাছের লোক বা বন্ধুর দোষত্রুটি উপেক্ষা করা এবং দূরের লোক বা শত্রুদের সাথে জুলুম করাও আদালতের নীতি হতে পারে না।”
.
.
উসতায যাইদানের বক্তব্য এতটুকু থাক। এবার আমরা বইগুলো সম্পর্কে
জানি।
.
১. মাওলানা মওদূদী : একটি জীবন একটি ইতিহাস
.
এ বইটির লেখক আব্বাস আলী খান। মরহুম খান সাহেব জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর ছিলেন দীর্ঘদিন। আমৃত্যু সিনিয়র নায়েবে আমীরের দায়িত্ব পালন করেছেন। তবে তার এই পরিচিতির বাইরে তিনি ছিলেন একজন খাঁটি গবেষক। এই বইটিতে খান সাহেবের গবেষকসুলভ অবস্থান সুস্পষ্ট। পাশাপাশি উপলব্ধি আর আবেগের উদ্বাহু সম্মিলনও এ বইয়ে অনুভব করা যায়। মাওলানাকে আদ্যোপান্ত জানতে বাংলাভাষায় এটিই শ্রেষ্ঠ বই।
.
বইটির প্রকাশ করেছে জামায়াতের প্রকাশনা বিভাগ। কেন যে মাঝে মাঝে বইটি তারা প্রিন্টআউট রাখে আমার জানা নেই! আশ্চর্যজনক! কোনো কৈফিয়ত এক্ষেত্রে গ্রহণযোগ্য বলে মনে করি না।
.
.
২. যে বৃক্ষরাজির স্নিগ্ধতায় বেড়ে উঠি : আমার আব্বা আম্মা
.
লেখক সাইয়েদা হুমায়রা মওদূদী; মাওলানার কন্যা; রিয়াদ ইউনিভার্সিটির ইংরেজি ভাষা-সাহিত্যের প্রফেসর ছিলেন।
.
এ বইটি মাওলানার পারিবারিক জীবনের খোলা ডায়েরির মতো। মাওলানার সংগ্রামের পেছনে একটি সংবেদনশীল পরিবারের কী অপরিসীম ভূমিকা ছিল তা বইয়ের পাতায় পাতায় অনুভব করবেন পাঠক। মাওলানার জীবনে মা ও স্ত্রী কী অপরিসীম সিগ্ধতায় হাজির তা দেখলে এই লোকটির প্রতি ঈর্ষা হয়! কী অপার সৌভাগ্য এ মানুষটির!
.
মাওলানার দৃঢ় ব্যক্তিত্ব, পরিমিতিবোধ, রুচিশীলতায় এ বইয়ের পাঠক প্রভাবিত হতে বাধ্য। এ বইয়ের পাঠ নিতে গিয়ে কখনও কেঁদেছি, কখনও হেসেছি। কখনও-বা সবর আর দৃঢ়তার সবক নিয়েছি।
.
এককথায় অসামান্য একটি বই। সাইয়েদ রাফে সামনান অনূদিত বইটি বর্তমানে প্রফেসরস বুক কর্ণার পরিবেশন করছে।
.
.
৩. মাওলানা মওদূদীকে যেমন দেখেছি
.
অধ্যাপক গোলাম আযমের লেখা; উনার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার বয়ান। তিনি সাংগঠনিক জীবনের বাঁকে বাঁকে মাওলানাকে যেভাবে দেখেছেন তার ঝরঝরে বর্ণনা এসেছে বইটিতে। পাঠক অনেকগুলো অভিজ্ঞতা, প্রশ্নের উত্তর, অভিযোগের জবাব, সংকটের সমাধান পেয়ে যাবেন বইটিতে।
.
প্রকাশ করেছে আধুনিক প্রকাশনী।
.
.
৪. শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ দাঈ ইলাল্লাহ
.
মাওলানা মওদূদীর ওপর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ লেখার সংকলন। বিশ্ববিখ্যাত বহু চিন্তাবিদ, আলিম, সংগঠক, গবেষকের লেখা স্থান পেয়েছে এখানে। সংকলনটি করেছেন মুহাম্মদ নুরুযযামান। আধুনিক প্রকাশনী এটির প্রকাশক।
.
.
৫. জীবন সায়াহ্নে মাওলানা মওদূদী
.
হাফেজ মুনির উদ্দীন আহমদ সংকলিত বইটিতে মাওলানার শেষ জীবনের কর্মতৎপরতা, লেখালেখি ইত্যাদি ওঠে এসেছে। সুন্দর একটি বই। প্রকাশ করেছে মুনমুন পাবলিশিং হাউস।
.
.
৬. ইসলামি জাগরণের তিন পথিকৃৎ
.
মরহুম এ.কে.এম. নাজির আহমদ রচিত এ বইটি খুবই উপকারী। ইমাম হাসান আল বান্না, মাওলানা মওদূদী ও বদিউজ্জামান নুরসিকে সংক্ষেপে একই মলাটে সংকুলান করেছেন লেখক। প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার।
.
.
৭. মাওলানা মওদূদীর সাথে মরিয়াম জামিলার পত্রালাপ
.
মাওলানার দাওয়াতী চরিত্র আর প্রজ্ঞার এক ঐতিহাসিক দলিল বইটি। আমেরিকান এই খ্রিস্টান তরুণী মাওলানার লেখার সুবাদে ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট হন। পরে মাওলানার সাথে দীর্ঘদিন পত্রালাপ জারি রেখে ইসলামের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে জানতে থাকেন। পরে মাওলানার আমন্ত্রণে তিনি পাকিস্তান হিজরত করেন এবং মুসলিম হন। মাওলানার অভিভাবকত্বে তার বিয়ে হয় পাকিস্তানেই। তিনি লেখিকা হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেন।
.
বইটি অনুবাদ করেছেন একেএম হানিফ। প্রকাশ করেছে পাঞ্জেরী ইসলামিক পাবলিকেশন। (সংযুক্তি : সম্প্রতি বইটি নতুন করে প্রকাশ করেছে তাফহীম পাবলিকেশন)।
.
.

৮. বিকালের আসর
.
আব্বাস আলী খান সম্পাদিত এ বইটিতে মাওলানার বৈঠকী আলাপ স্থান পেয়েছে। বিকালে মাওলানা সাক্ষাৎপ্রার্থীদের সাথে বসতেন, আলাপ করতেন, বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিতেন। সেই আলাপগুলোর কিয়দংশ উঠে এসেছে। আধুনিক প্রকাশনী প্রকাশ করেছে।
.
.
৯. মাওলানা মওদূদীর অবদান
লেখক : আব্বাস আলী খান
প্রকাশক : সাইয়েদ আবুল আ’লা মওদূদী রিসার্চ একাডেমী
.
মাওলানার দাওয়াত, চিন্তাধারা, রচনাবলি, সংগঠন ইত্যাদির বহুমুখী প্রভাব ও অবদান আলোচনা করা হয়েছে।
.
.
১০. আলেমে দ্বীন মাওলানা মওদূদী
লেখক : আব্বাস আলী খান
প্রকাশক : সাইয়েদ আবুল আ’লা মওদূদী রিসার্চ একাডেমী
.
মাওলানা মওদূদী কোনো প্রথাগত আলেম নন বলে যে প্রচার আছে সেটাকে খণ্ডন করা হয়েছে। মাওলানার একাডেমিক ব্যাকগ্রাউন্ড, ইজাযাহ হাসিলের সনদ ইত্যাদি উপস্থাপন করা হয়েছে।
.
সহায়ক হিসেবে আরও কয়েকটি বই পড়া যেতে পারে, যেখানে প্রাসঙ্গিকভাবে মাওলানা মওদূদীর সম্পর্কে দীর্ঘ আলাপ এসেছ।

১১. জামায়াতে ইসলামীর ইতিহাস
আব্বাস আলী খান রচিত এ বইটি জামায়াতের প্রকাশনা বিভাগ প্রকাশ করেছে। মাওলানা মওদূদীকে জানতে জামায়াতের ইতিহাস জানা জরুরি।
.
১২. “সাইয়েদ আবুল আ’লা মওদূদী (রহ.) ও জামায়াতে ইসলামি”
.
এটি মাওলানার ওপর একটি চমৎকার নিবন্ধ। পাকিস্তান জামায়াতের আমীর মরহুম কাজী হোসাইন আহমদ রচিত এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেলটি দৈনিক সংগ্রামে প্রকাশিত হয়; ৯ অক্টোবর, ২০১১, রবিবার।
.
জুলফিকার আহমদ কিসমতী অনূদিত এই লেখাটির পেপারকাটিং আমার সংরক্ষণে আছে। অনলাইনেও পাওয়া যাবে সম্ভবত।
.
.
১৩. ইমাম মওদূদী : চিন্তাধারা ও তাজদীদ
.
বইটি উসতায ইউসুফ আল কারযাভীর সরল বয়ানে লেখা। আগে পশ্চিম বঙ্গ থেকে ভিন্ন নামে প্রকাশিত ছিল। সম্প্রতি ইকামাহ পাবলিকেশন থেকে প্রকাশিত হয়েছে বইটি।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

এ জাতীয় আরো খবর..



সর্বশেষ খবর